বাংলাদেশ

শুদ্ধি অভিযানে টার্গেট সবাই আইনের আওতায় আসবে: কাদের

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, চলমান শুদ্ধি অভিযানে যারা টার্গেট রয়েছে, তাদের সবাইকে আইনের আওতায় আনা হবে।

নারায়ণগঞ্জে আজ শনিবার মেঘনা সেতুর অ্যাপ্রোচ সড়কের সংস্কারকাজ পরিদর্শন শেষে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে মন্ত্রী এ কথা বলেন।

ওবায়দুল কাদের বলেন, বুয়েট শিক্ষার্থী আবরার হত্যাকাণ্ডের পর প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশে সব আসামিকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। ছাত্রলীগের নেতা-কর্মী হওয়ার পরও তাদের কোনো ছাড় দেওয়া হয়নি। শুদ্ধি অভিযানে যারা টার্গেট রয়েছে, তাদের সবাইকে আইনের আওতায় আনা হবে।

‘বিরোধী দলের সঙ্গে বৈরী সম্পর্ক চাই না’ এ কথা উল্লেখ করে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বলেন, ‘আমরা চাই বিরোধীদল গঠনমূলক ও দায়িত্বশীল ভূমিকা পালন করবে। আমরাও তাদের ব্যাপারে অনেক সহনশীল। বিএনপির সাতজন সংসদ সদস্য থাকার পরও একজন সংরক্ষিত নারী সংসদ সদস্য দেওয়া হয়েছে। বিরোধী দলের সংসদ সদস্যরা পার্লামেন্টের ভেতরে বাইরে যা খুশি বলছেন। বিভিন্ন কর্মসূচি পালন করছেন। কোনো বাধা দেওয়া হচ্ছে না।’

দলের সহযোগী সংগঠনগুলোর সম্মেলনের বিষয়ে ওবায়দুল কাদের বলেন, আওয়ামী লীগের সহযোগী যেসব সংগঠনের মেয়াদ সাত–আট বছর পেরিয়ে গেছে, নভেম্বরের মধ্যে সেসব সংগঠনের সম্মেলন শেষ হবে। এসব সম্মেলনে নতুন কমিটি নবীন-প্রবীণের সমন্বয়ে গঠন করা হবে।

আওয়ামী লীগের সম্মেলন নির্ধারিত সময়েই হবে জানিয়ে ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনা একজন চেঞ্জমেকার। তিনি সব সময়ই সম্মেলনের মাধ্যমে আধুনিক প্রযুক্তিজ্ঞানসম্পন্ন নবীন-প্রবীণের সমন্বয়ে কমিটি গঠন করে থাকেন। কাউন্সিলররা দলের সভাপতি শেখ হাসিনার ওপরেই কমিটি গঠনের সব দায়িত্ব ছেড়ে দেন। আমার বিশ্বাস, এবারের সম্মেলনের মাধ্যমে নবীন-প্রবীণের সমন্বয় ঘটবে। সম্মেলনের মাধ্যমে অনেক নতুন মুখের জায়গা কমিটিতে হবে।’

পৃথিবীর উন্নত দেশগুলোয় মহাসড়ক রক্ষণাবেক্ষণের জন্য টোল আদায় করা হয় জানিয়ে সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী বলেন, ‘চার লেনবিশিষ্ট সড়কে টোল আদায়ের বিষয়টি নিয়ে মন্ত্রণালয় কাজ করবে। আমরাও বিদেশিদের মতো সড়ক রক্ষণাবেক্ষণের জন্য টোল আদায় করব। সে বিষয়ে মন্ত্রণালয় প্রক্রিয়া শুরু করেছে।’ তিনি আরও বলেন, এবারের ঢাকা-চট্রগ্রাম মহাসড়কে ঈদযাত্রা সর্বকালের সবচেয়ে বেশি স্বস্তির হয়েছে। নতুন তিনটি সেতু খুলে দেওয়া হয়েছে। পুরোনো সেতুর সব কাজ আগামী মাসের ১৫ তারিখের মধ্যে শেষ হয়ে যাবে। নতুন সেতুর পাশাপাশি পুরোনো সেতু তিনটির সংস্কারকাজ শেষে খুলে দেওয়ার পর এই সড়কে কোনো যানজট থাকবে না।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button
Close